Text size A A A
Color C C C C
পাতা

অফিস সম্পর্কিত

বিশ্বব্যাপী পরিবেশ সংরক্ষণ একটি গুরুত্বপূর্ণ আলোচ্য বিষয়। অনবরত পরিবেশ দূষণের কারণে অন্যান্য বিষয়সহ জলবায়ুর পরিবর্তন পৃথিবীর বুকে জীবনের অসিত্মত্ব রক্ষা করা মারাত্মকভাবে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। দীর্ঘকাল ধরে সারা দুনিয়ার পরিবেশবিদরা বিশ্বনেতাদের কাছে পরিবেশ দূষণ ও পরিবেশ সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয়াবলীর উপর দৃষ্টি আকর্ষণ করার চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। সর্বপ্রথম ১৯৭২ সালে মানব পরিবেশ শীর্ষক একটি সম্মেলন স্টকহোমে অনুষ্ঠিত হয়। এরই ধারাবাহিকতায় ব্রাজিলের রিওডি জেনেরিওতে ১৯৯২ সালে বিশ্ব ধরিত্রী সম্মেলন (Earth Summit) অনুষ্ঠিত হয়। বিশ্বের পরিবেশ সমস্যাগুলোর সাথে সাথে বাংলাদেশ আঞ্চলিক ও ভৌগলিক দিক থেকে একটি ঝুঁকিপূর্ণ দেশ। এদেশে রয়েছে স্থানীয় হাজারো সমস্যা। বাংলাদেশে প্রতিনিয়ত প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট পরিবেশ সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে। পরিবেশগত সমস্যাগুলোর মধ্যে বাংলাদেশে আলোচিত ইস্যু হচ্ছে জনসংখ্যার আধিক্য ও দারিদ্র্যতা। অন্যান্য পরিবেশগত সমস্যাগুলোর মধ্যে রয়েছে বন উজাড়, পানির গুনগত মান হ্রাস, প্রাকৃতিক দুর্যোগ, ভূমি ক্ষয়, লবণাক্ততা, অপরিকল্পিত নগরায়ন, অপরিশোধিত বর্জ্য নির্গমন এবং শিল্প বর্জ্য ইত্যাদি। ১৯৭২ সালে সুইডেনের স্টকহোমে মানব পরিবেশ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হওয়ার পর বাংলাদেশে সর্বপ্রথম পরিবেশ বিষয়ক কার্যাবলী গ্রহণ করা হয়। স্টকহোমে সম্মেলনের ঠিক পর-পরই মাত্র ২৭ জন জনবল নিয়ে পরিবেশ অধিদপ্তর কাযক্রম শুরু করে । পরিবেশ অধিদপ্তরের সদর দপ্তর ই ১৬ আগারগাও শেরে বাংলা নগর, ঢাকায় অবস্থিত। যে কোন প্রয়োজনে পরিবেশ অধিদপ্তরের ওয়েব সাইট www.doe.gov.bd দেখা যেতে পারে। বর্তমান ও আগামী প্রজন্মের জন্য দূষণমুক্ত বাসযোগ্য একটি সুস্থ, সুন্দর, টেকসই ও পরিবেশসম্মত বাংলাদেশ গড়ে তোলা এবং বর্তমান ও ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য নিরাপদ পরিবেশ গড়ে তোলা, টেকসই পরিবেশবান্ধব অর্থনৈতিক উন্নয়নকে উৎসাহিত করা, পরিবেশ সংক্রান্ত আইন-কানুন ও বিধি-বিধান যথাযথ প্রয়োগ, পরিবেশ বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধি, উন্নয়ন পরিকল্পনায় পরিবেশ ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করা এবং পরিবেশ সুশাসন নিশ্চিত করার জন্য পরিবেশ অধিদপ্তর কাজ করে যাচ্ছে।

 

ছবি